কুমিল্লা সরকারি কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে রেজিস্ট্রেশন চলছে

College History

এক নজরে কুমিল্লা সরকারি কলেজ

প্রতিষ্ঠাকাল: ১৯৬৮ খ্রিষ্টাব্দ
জাতীয়করণ: ১৯৮৫ খ্রিষ্টাব্দ
প্রতিষ্ঠাকালীন অধ্যক্ষ: জনাব এ কে এম রফিকুল ইসলাম
বর্তমান অধ্যক্ষ: প্রফেসর নাজনীন রহমান
মোট আয়তন: ২.৬৯৮৫ একর

কলেজের বর্তমান ভবনসমূহ:

১. দ্বিতলবিশিষ্ট পুরাতন প্রশাসনিক ভবন (বর্তমানে শিক্ষক পরিষদ ভবন ও ছাত্রীদের কমনরুম)
২. ত্রিতলবিশিষ্ট নতুন প্রশাসনিক ভবন
৩. ত্রিতলবিশিষ্ট অনার্স ভবন
৪. অধ্যক্ষের বাসভবন (সুপ্রভাত)
৫. ছাত্রদের কমনরুম
৬. দুটি টিনশেড একাডেমিক ভবন

অনার্স বিষয়সমূহ:

ইংরেজি , রাষ্ট্রবিজ্ঞান , ব্যবস্থাপনা ও হিসাববিজ্ঞান

শিক্ষক সংক্রান্ত তথ্য:

শিক্ষক সৃষ্ট পদ কর্মরত
অধ্যক্ষ ০১ ০১
সহযোগী অধ্যাপক ০২ ০২
সহযোগী অধ্যাপক(সংযুক্ত) ০২
সহকারী অধ্যাপক ১৩ ১৩
সহকারী অধ্যাপক (সংযুক্ত) ০৩
প্রভাষক ১৯ ১৬
প্রদর্শক ০৩ ০১
মোট ৩৮ ৩৮

ছাত্র-ছাত্রী সংক্রান্ত তথ্য:

কোর্স ছাত্র সংখ্যা ছাত্রী সংখ্যা মোট
উচ্চ মাধ্যমিক ১৩৮১ ৫৩৩ ১৯১৪
ডিগ্রী (পাস) ১১৫৩ ৬০৯ ১৭৬২
অনার্স ১৭৮০ ৭১৯ ২৪৯৯
মোট ৪৩১৪ ১৮৬১ ৬১৭৫

কর্মচারী সংক্রান্ত তথ্য:

শ্রেণি সরকারি বেসরকারি মোট
তৃতীয় শ্রেণী ০২ জন ০৫ জন ০৭ জন
চতুর্থ শ্রেণী ০৩ জন ২২ জন ২৫ জন
মোট ০৫ জন ২৭ জন ৩২ জন

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা- ২০১৫ ফলাফল বিবরণী:

শাখা পরীক্ষার্থীর সংখ্যা পাশের সংখ্যা পাশের হার
বিজ্ঞান 383 337 88%
মানবিক 323 195 60.37%
ব্যবসায় শিক্ষা 343 116 34%

গড় পাশের হার = 61%

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৬ উদযাপন

c
শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৬ উদযাপন উপলক্ষে রাত ১২.০১ মিনিটে টাউন হল মাঠে অবস্থিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। সূর্যেোদয়ের সাথে সাথে কলেজের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়। এরপর কুমিল্লা সরকারি কলেজের কলেজ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় । উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সরকারি কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর না্জনীন রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্যবস্থাপনা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব এ.বি.এম শিহাবুদ্দিন আহমদ, কৃষিবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জনাব মোঃ হারুনুর রশিদ পাটোয়ারী ও কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ত্ব করেন শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ নুরুর রহমান খান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কৃষিবিজ্ঞানের সহকারি অধ্যাপক জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার, কৃষিবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জনাব মোঃ হারুনুর রশিদ পাটোয়ারী , ব্যবস্থাপনা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব এ.বি.এম শিহাবুদ্দিন আহমদ ও শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম।
প্রধান অতিথি কুমিল্লা সরকারি কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজনীন রহমান তাঁর বক্তব্যে ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রকাশ করেন। তিনি শুদ্ধ ভাষা চর্চার উপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেন, বাংলা ভাষার মর্যাদা রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সকলের। আমাদের অধিকারের চেয়ে আমরা যদি আমাদের দায়িত্বের প্রতি অধিক মনোযোগী হই তাহলে দেশ ও জাতি অনেক সমৃদ্ধ হবে।
সবশেষে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ নুরুর রহমান খান। এরপর কুমিল্লা কলেজ থিয়েটারের আয়োজনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

কুমিল্লা সরকারি কলেজে অধ্যক্ষ আবদুর রউফ এর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ

a
কুমিল্লা সরকারি কলেজে ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ রোজ সোমবার বার্ষিক শিক্ষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ- ২০১৬ এর শুভ উদ্বোধন করেন কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজনীন রহমান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষিবিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক জনাব মোঃ হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ও কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাংস্কৃতিক কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন হতে তেলাওয়াত করা হয় এবং কুমিল্লা সদর উপজেলার চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুর রউফ এর মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব গ্রহণ ও তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রফেসর নাজনীন রহমান বলেন, সংস্কৃতি চর্চার মধ্য দিয়েই শিক্ষার্থীর মানসিকতার বিকাশ ঘটে। আনুষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চায় শিক্ষার্থীদেরকে আরো বেশি মনোনিবেশ করার উপদেশ দেন।
উদ্বোধনী দিনে উপস্থিত বক্তৃতা, কবিতা আবৃত্তি (বাংলা ও ইংরেজি) বিষয়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষক শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠানটি প্রাণবন্ত হয়ে উঠে।

বীরের কন্ঠে বীর গাঁথা

a
WP_20160109_11_42_13_Pro
কুমিল্লা সরকারি কলেজের কলেজ মিলনায়তনে স্বাধীনতার ৪৪ তম বিজয় দিবস উপলক্ষে “বীরের কন্ঠে বীর গাঁথা” শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় ৯ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, কুমিল্লার সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ইন্দুভূষণ ভৌমিক, বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা সরকারি কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজনীন রহমান ও কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ত্ব করেন বিজয় দিবস কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন কলেজের শিক্ষক পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক জনাব মোঃ ইখতিয়ার উদ্দিন ভূঁইয়া, ইসলামের ইতিহাসের প্রভাষক জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন, দর্শনের প্রভাষক জনাব শারমিন জামান, ইংরেজির বিভাগীয় প্রধান জনাব মোঃ তোবারক হোসেন মোল্লা, জীববিজ্ঞানের বিভাগীয় প্রধান জনাব মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন ও শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম। বিশেষ অতিথি কুমিল্লা সরকারি কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজনীন রহমান তাঁর বক্তব্যে, মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সম্মান প্রকাশ করেন। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী হিসেবে নিজেকে গর্বিত বোধ করেন। তিনি পরিশেষে এক কিশোর মুক্তিযোদ্ধার স্মরণে একটি স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন। প্রধান অতিথি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, কুমিল্লার সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ইন্দুভূষণ ভৌমিক মুক্তিযুদ্ধের সময়ের স্মৃতিচারণ করেন। তিনি কিভাবে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন, কিভাবে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন এবং আহত হন, সে কাহিনী তাঁর বক্তব্যে উঠে আসে। উপস্থিত সকলে তাঁর স্মৃতিচারণে বিমুগ্ধ হন। সবশেষে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন বিজয় দিবস কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার।

বার্ষিক শিক্ষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ- ২০১৬ এর শুভ উদ্বোধন
কুমিল্লা সরকারি কলেজে ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬ রোজ সোমবার বার্ষিক শিক্ষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সপ্তাহ- ২০১৬ এর শুভ উদ্বোধন করেন কলেজের মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর নাজনীন রহমান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কৃষিবিজ্ঞানের সহযোগী অধ্যাপক জনাব মোঃ হারুনুর রশীদ পাটোয়ারী ও কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোঃ আবদুছ সালাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাংস্কৃতিক কমিটির আহ্বায়ক জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম।
a
কুমিল্লা সকারি কলেজ
পটভূমি

কুমিল্লা শহরের প্রাণকেন্দ্র পুলিশ লাইন এলাকায় এ অঞ্চলের বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী বিশেষ করে সমাজ সেবক এডভোকেট আবুল খায়ের , এডভোকেট সাজেদুল হক বিশিষ্ট শিল্পপতি মোহাম্মদ নূরুল হক প্রমুখের প্রচেষ্টায় কুমিল্লা কলেজ নামে একটি বেসরকারি কলেজ ১৯৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। তাঁরা এলাকাবাসীকে উদ্বুদ্ধকরণ ,ছাত্র- ছাত্রী সংগ্রহকরণ ,তহবিল সংগ্রহকরণ , অধ্যাপক ও কর্মচারি নিয়োগকরণ ,আসবাবপত্র সংগ্রহকরণ , কলেজের জন্য জায়গার ব্যবস্থাকরণ সহ অন্যান্য প্রশাসনিক দায়িত্ব পালন করেন। সে সময় তাঁদেরকে আরও সহযোগীতা করেন এডভোকেট জনাব হারুনুর রশিদ , এডভোকেট জনাব রেজাউর রহমান , শিল্পপতি আবদুস সামাদ, জনাব নাছির উদ্দিন চৌধুরী , এডঃ মহসীনুজ্জামান , আমোদ পত্রিকার সম্পাদক জনাব ফজলে রাব্বি ,ডাঃ লুৎফর রহমান এবং অধ্যাপক আবদুল ওহাব প্রমুখ। সর্বোপরি তৎকালীন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক জনাব আবদুছ ছালাম সি, এস ,পি এ ব্যাপারে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন। গর্ভনিং বডি ছাড়াও তখন অরগানাইজিং কমিটি নামে একটি পৃথক কমিটি ছিল। এতে কুমিল্লা শহরের বিশিষ্ট গন্যমান্য ব্যক্তিগণ অন্তর্ভুক্ত থেকে কলেজ প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনায় অবদান রাখেন। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে জনাব বদিউল আলম গর্ভনিং বডির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। এ কলেজে ১ম নিয়োগ প্রাপ্ত অধ্যাপক জনাব আবদুল ওহাব। তিনি ছাত্র/ছাত্রী ভর্তি সহ কলেজের ভৌত অবকাঠামোর উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। জনাব নুরু মিয়া ১ম নিয়োগপ্রাপ্ত পিয়ন। তাঁরা নব গঠিত কলেজটির জন্য যথেষ্ট পরিশ্রম করেন। সে সময় প্রধান সহকারী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন জনাব মোঃ দেলোয়ার হোসেন। তিনি হিসাবরক্ষণ ও টাইপিষ্ট এর দায়িত্ব সহ অন্যান্য প্রশাসনিক কাজে সহায়তা করেন।অনেক প্রতিকূল অবস্থায় থেকেও তখনকার অধ্যক্ষ , অধ্যাপক মন্ডলী এবং কর্মচারীগণ এ কলেজে তাদের দায়িত্ব পালন করেছেন। যে জায়গায় কলেজটি স্থাপিত সেটি একটি হিন্দু জমিদার বাড়ি ছিল। বাড়ির মালিকের নাম শ্রী যতিন্দ্র চন্দ্র কর ও রবিন্দ্র কর গং। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পূর্ব থেকেই তারা এ বাড়িতে বসবাস করতেন না এবং স্ব-পরিবারে ভারতে চলে যান। পাকিস্তান আমলে এ কলেজ স্থাপনের পূর্ব পর্যন্ত এখানে আঞ্চলিক E.P.R ক্যাম্প ছিল। বর্তমানে কলেজের মালিকানায় জমির পরিমাণ ২.৬৮ একর। তিনটি টিন শেড বিল্ডিং এবং একটি পুরাতন এক তলা প্রশাসনিক ভবন নিয়ে একাদশ বিজ্ঞান , মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগে মোট ৫৩১ জন ছাত্র- ছাত্রী ভর্তি ও মাধ্যমে কলেজটির কার্যক্রম শুরু হয়। কলেজের মালিকানায় অধ্যক্ষ মহোদয়ের বসবাসের জন্য ধর্মপুর মৌজার অন্তর্গত বাগিচাগাঁও এলাকায় সুপ্রভাত নামে একটি বাসভবণ রয়েছে। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন জনাব এ. কে. এম রফিকুল আলম। বিভিন্ন বিভাগের অধ্যাপকের সংখ্যা ছিল মাত্র ০৯ জন এবং ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীর সংখ্যা ছিল মোট ০৯ জন। উল্লেখ্য তখন ভিক্টোরিয়া কলেজের কয়েকজন নিবেদিত প্রাণ শিক্ষক বিনা পারিশ্রমিকে ক্লাশ নিয়ে কলেজ পরিচালনায় সহায়তা করেছেন। বিষয় ছিল – বাংলা , ইংরেজী, ইসলামের ইতিহাস , পৌরনীতি , অর্থনীতি , যুক্তিবিদ্যা , ব্যবস্থাপনা , হিসাববিজ্ঞান , পদার্থবিজ্ঞান , রসায়ন বিজ্ঞান , জীববিজ্ঞান ও গণিত। পরবর্তীতে কৃষিবিজ্ঞান চালু করা হয়। ২০০০-২০০১ শিক্ষাবর্ষ থেকে কম্পিউটার বিজ্ঞান বিষয়ে ছাত্র – ছাত্রী ভর্তি করা হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রথম ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক জনাব সৈয়দ আহমেদ। এ কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা ১৯৭২ সালে এ কলেজ কেন্দ্র থেকেই HSC পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। পাশের হার ছিল ৯০.৭৯% । কুমিল্লা কলেজ “ক্যাডেট সংগঠন” নামে একটি সংগঠন অধ্যাপক জনাব মোঃ তাজুল ইসলামের যোগ্য নেতৃত্বে পরিচালিত হয়। মরহুম অধ্যাপক জনাব মোঃ তাজুল ইসলাম আন্তক্রীড়া , বহিক্রীড়া , BNCC, স্কাউট ইত্যাদির মাধ্যমে কলেজের জন্য যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেন। ১৯৮৫ সালে ছাত্র-ছাত্রী , শিক্ষক ,কর্মচারী ও অত্র অঞ্চলের জনগনের দাবীর প্রেক্ষিতে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি হোসাইন মুহাম্মদ এরশাদ কুমিল্লা টাউন হল ময়দান থেকে কলেজটিকে সরকারি করণের ঘোষনা দেন। এ দাবি আদায়ে তৎকালীন কুমিল্লার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক জনাব সৈয়দ আমিনুর রহমান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। তখন তিনি এ কলেজের গর্ভনিং বডির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। এ বিষয়ে তাঁকে অধ্যাপক জনাব মফিজুল ইসলাম এম, পি এবং জনাব আনসার আহমেদ এম, পি প্রমুখ নেতৃবৃন্দ সহযোগতিা করেন । সরকারি করণের ঘোষনা বাস্তবায়নের কঠিন দায়িত্ব পালনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন তখনকার এ কলেজের অধ্যাপক মরহুম আবদুল কুদ্দুস , অধ্যাপক আবদুল ওহাব , মরহুম জনাব আলী আহম্মদ , জনাব মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া , মিঃ বণিতা মোহন দে এবং জনাব মোঃ রফিকুল ইসলাম সহ তৎকালীন অন্যান্য শিক্ষকমন্ডলী ।

কুমিল্লা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মেজর মোঃ ইয়াকুব আলী স্যারের উন্নয়ন কর্মকান্ডসমূহ

ক্রম বিবরণ
১. কুমিল্লা সরকারি কলেজের নিজস্ব ডায়নামিক ওয়েবসাইটের প্রতিষ্ঠাকরণ।
২. কুমিল্লা সরকারি কলেজের নবনির্মিত গেটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন (২৭ ডিসেম্বর, ২০১৪) ও শুভ উদ্বোধন (১ মার্চ, ২০১৫)।
৩. চারতলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও নির্মাণ কাজ শুরু।
৪. পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখ হতে অনার্স ভবন পর্যনত সংযোগ সড়ক নির্মাণ ও শুভ উদ্বোধন (১৪ অক্টোবর, ২০১৪)।
৫. কলেজ পুকুরের পশ্চিম পাড়ের রিটেইনিং ওয়াল নির্মাণ ও শুভ উদ্বোধন (১৪ অক্টোবর, ২০১৪)।
৬. কলেজ মসজিদের সংস্কার কাজ (বারান্দার দেয়াল উচুঁ করা , চাল সম্প্রসারণ ও রঙ করা)।
Comilla Govt. College © 2015 শিক্ষা বাতায়ন
Web Design MymensinghPremium WordPress ThemesWeb Development

উপবৃত্তির জন্য নির্বাচিত ২০১৮-২০১৯ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের তালিকা

August 19, 2018August 19, 2018
List

দ্বাদশ শ্রেণির প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা-২০১৮ এর সময়সূচি

August 18, 2018August 18, 2018
Pre Test 2018

২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (পাস) উপবৃত্তির জন্য নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের KYC ফরম পূরণ সংক্রান্ত

July 19, 2018July 19, 2018
Degree Stipent

একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা-২০১৮ এর ফলাফল (ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ)

July 14, 2018July 14, 2018

একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা-২০১৮ এর ফলাফল (মানবিক বিভাগ)

July 14, 2018

একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা-২০১৮ এর ফলাফল (বিজ্ঞান বিভাগ)

July 14, 2018

একাদশ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষা-২০১৮ এর সংশোধিত সময়সূচি

April 22, 2018April 22, 2018
HSC 1st Final Exam-2018

২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির উপবৃত্তির জন্য নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের KYC ফরম পূরণ সংক্রান্ত

April 7, 2018April 7, 2018
2017-2018

জনাব মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, সহকারী অধ্যাপক, উদ্ভিদবিদ্যা, কুমিল্লা সরকারি কলেজ, কুমিল্লা-এর অনাপত্তি সনদ (NOC)

February 6, 2018February 6, 2018
Noc

জনাব মোঃ মনিরুল ইসলাম, দক্ষ বেয়ারার, কুমিল্লা সরকারি কলেজ, কুমিল্লা-এর অনাপত্তি সনদ (NOC)

January 29, 2018January 29, 2018
Monirul Islam

২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির উপবৃত্তি প্রকল্পের আওতায় উপবৃত্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের মোবাইল একাউন্ট খোলা প্রসঙ্গে

January 9, 2018January 9, 2018
Upabritti